creative writing in ct hexrpg homework help exercises for creative writing end of year creative writing activities peacock creative writing holderness family can help with homework writing service linux college writing from paragraph to essay creative writing techniques 11 ubc creative writing application online creative writing sites how to buy a car process essay essay about doing what you love jobs for creative writing teachers us news and world report mfa creative writing rankings it is the first paragraph written in a research paper professional business plan writer toronto how to pretend to be doing homework creative writing snhu creative writing center sea past papers 2019 creative writing ethical considerations when doing a literature review censorship in creative writing essay on how i help my mother in kitchen in english creative writing auf englisch clip art creative writing monologue creative writing sites homework help creative writing tears description primary homework help greek theatre definition of do my homework essay about marry for money creative writing description of a dog ma creative writing birkbeck process for writing college essay doing a literature review in health and social care a practical guide a practical guide writer residency personal statement essay the help hspva creative writing audition description of a nose creative writing prepscholar essay editing difference between creative writing and essay out of this world creative writing study creative writing online creative writing diploma uts job vacancies creative writing can't do my dissertation case study maker online detective story creative writing essay writer montreal best creative writing universities in the world literature review help uk editing homework i refuse to do my homework creative writing trends creative writing on neighbours can you write a literature review in a day homework help for sale essay rewriter app creative writing allegory cv writing service maidstone good opening lines for creative writing homework help hadrians wall superior essay writers will writing service wokingham creative writing master germany essay about famous writer we are doing homework traduzione self help group thesis fully funded masters in creative writing programs analytical exposition tentang homework / programming assignment help written personal statement for college university of nebraska creative writing thesis statement help grade 2 english creative writing can i pay someone to do my coursework is creative writing an art can i write dear hiring manager on a cover letter essay automatic writer creative writing assignment digiskills keat hong cc creative writing vermont creative writing mfa golden egg creative writing university of exeter creative writing staff my name is earl creative writing best canadian resume writing service research paper where to buy creative writing assignments 3rd grade list of mfa programs in creative writing open ended creative writing prompts primary homework help polar bears creative writing manner paypal business plan three forms of creative writing are blank blank and blank excel homework help personal statement for medical school help business plan writers in dubai pecking order theory literature review creative writing on my favorite toy considering creative writing
Breaking News

জেনেনিন যে কারণে আওয়ামী মুসলিম লীগ থেকে ‘মুসলিম’ শব্দটি বাদ দেয়া হয়েছিল

আওয়ামী লীগ আজ ৭১ বছর পূর্ণ করল। পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী রোজ গার্ডেনে ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন আওয়ামী মুসলিম লীগ নামে এই দলের আত্মপ্রকাশ ঘটে। প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগের সভাপতি হন মওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী, সহ-সভাপতি হন আতাউর রহমান খান, শাখাওয়াত হোসেন ও আলী আহমদ।

মৌলভী শামসুল হককে করা হয় সাধারণ সম্পাদক। সাথে শেখ মুজিবুর রহমান, খন্দকার মোশতাক আহমদ ও এ কে রফিকুল হোসেনকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয়। সে কমিটর কোষাধ্যক্ষ হন ইয়ার মোহাম্মদ খান। অন্যদিকে, পুরো পাকিস্তানের ক্ষেত্রে সংগঠনটির নাম রাখা হয় নিখিল পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ। এর সভাপতি হন হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী। সেক্রেটারি জেনারেল হন মাহমুদুল হক ওসমানী।

নওয়াবজাদা নসরুল্লাহ খান হন পশ্চিম পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। প্রতিষ্ঠার পর ১৯৪৯ থেকে ১৯৫৭ সাল পর্যন্ত চারটি কাউন্সিলে সভাপতি নির্বাচিত হন মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী।

আর দ্বিতীয় কাউন্সিল থেকে ১৯৬৬ সাল পর্যন্ত দলের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৫৫ আওয়ামী মুসলিম লীগের যে কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। সে কাউন্সিলে আবারো সভাপতি হন মওলানা ভাসানী ও সেক্রেটারি হন শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৫৫ সালের কাউন্সিলের অনেক আগ থেকেই মওলানা ভাসানী চাচ্ছিলেন দলের নাম থেকে মুসলিম শব্দটি বাদ দিতে।

কিন্তু এতে সম্মত ছিলেন না দলের কেন্দ্রীয় প্রধান বা নিখিল পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ সভাপতি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী। এবিষয়ে লেখক ও গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ বিবিসিকে বলেন, ”মওলানা ভাসানী দলকে অসাম্প্রদায়িক করতে মুসলিম শব্দটি বাদ দেয়ার জন্য জোর দিচ্ছিলেন, কিন্তু হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী চাইছিলেন যে মুসলিম শব্দটি থাকুন। কারণ তার ভয় ছিল, এটা বাদ হলে পশ্চিম পাকিস্তানে জনপ্রিয়তা কমে যাবে”।

অবশেষে ১৯৫৫ আওয়ামী মুসলিম লীগে যে কাউন্সিলেই দলের নাম থেকে মুসলিম শব্দটি বাদ দেয়া হয়। আওয়ামী মুসলিম লীগ থেকে মুসলিম শব্দ বাদ দিয়ে দলের নাম শুধু আওয়ামী লীগ করার পরেও পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে মতাদর্শগত ভিন্নতার কারণে মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী এরপর বেশি দিন থাকতে পারেননি দলটিতে।

১৯৫৭ সালে তিনি দল থেকে পদত্যাগ করেন। ১৯৫৬ সালে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীকে নিয়োগ দেন প্রেসিডেন্ট ইস্কান্দার মীর্জা। সে হিসেবে তখন আওয়ামী লীগ ছিল পাকিস্তান সরকারে। এবিষয়ে লেখক মহিউদ্দিন আহমদ বিবিসিকে বলেন, ”তখন আওয়ামী লীগ পাকিস্তানের সরকারে। সে সময় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে পাকিস্তানের কয়েকটি সামরিক চুক্তি হয়। সিয়াটো এবং সেন্টো সামরিক জোটে পাকিস্তান সদস্য ছিল।

মওলানা ভাসানী এবং দলের মধ্যে থাকা বামপন্থীরা চাপ দিচ্ছিলেন যাতে আওয়ামী লীগ মার্কিন সামরিক জোট থেকে বেরিয়ে আসে। সোহরাওয়াদীকে মার্কিন চুক্তির সমর্থক বলে মনে করা হতো। পাক-মার্কিন সামরিক চুক্তি বাতিলের দাবি করছিলেন মওলানা ভাসানী, কিন্তু তাতে রাজি হননি প্রধানমন্ত্রী সোহরাওয়ার্দী।” ওই বিরোধের একটা পর্যায়ে এসে পূর্ব পাকিস্তানের টাঙ্গাইলের কাগমারিতে আওয়ামী লীগের বিশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সম্মেলনে মওলানা ভাসানীর প্রস্তাবটি ভোটাভুটিতে হেরে যায়। এরপর ১৮ মার্চ পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেন মওলানা ভাসানী। সেই বছর ২৫শে জুলাই তিনি ঢাকার রূপমহল সিনেমা হলে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ) গঠন করেন। আওয়ামী লীগ থেকে বেরিয়ে অনেক নেতা তার নতুন দলে যোগ দেন, যাদের মধ্যে ছিলেন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ইয়ার মোহাম্মদ খানও। তখন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হন মাওলানা আবদুর রশীদ তর্কবাগীশ। সাধারণ সম্পাদক হিসাবে থাকেন শেখ মুজিবুর রহমান।ইমান২৪.কম

Check Also

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দুই শতাধিক প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা

বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দেশের সরকারি ও বেসরকারি আর্থিক এবং অন্যান্য ২০০ এর বেশি প্রতিষ্ঠান সাইবার হামলার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *