Breaking News

করোনাভাইরাসের চলমান পরিস্থিতির মধ্যেই গার্মেন্টসমূহ পর্যায়ক্রমে খুলে দেয়ার সিদ্ধান্তে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের চলমান পরিস্থিতিতে গার্মেন্টসমূহ পর্যায়ক্রমে খুলে দেয়ার সিদ্ধান্তে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার ২৬ এপ্রিল প্রদত্ত এক বিবৃতিতে বলেন,

“দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিদিনই নতুনভাবে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। প্রতিদিনই মৃত্যুর খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে প্রথমে ঢাকার শ্রমিকদের দ্বারা গার্মেন্টসমূহ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে সাভার, গাজীপুর ও ময়মনসিংহের গার্মেন্টসমূহ খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

সারা দেশে যখন করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে জনগণ উৎকন্ঠিত, তখন এ সিদ্ধান্ত নেয়া হলো। এ সিদ্ধান্তে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। এ ব্যাপারে আরো ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নেয়া দরকার বলে আমরা মনে করি। গার্মেন্ট কারখানাগুলো খুলে দেয়ার পূর্বে যে ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মানা দরকার কারখানার মালিক পক্ষগণ

তার কতটুকু ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সক্ষম হয়েছেন, তা আমাদের জানা নেই। এই পরিস্থিতিতে যদি কোনো দুর্বলতা থেকে যায় তাহলে তা আমাদের জন্য ভয়াবহ পরিস্থিতি ডেকে আনতে পারে। দেশে নতুনভাবে ব্যাপক হারে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সমূহ আশঙ্কা থেকে যাবে।

গার্মেন্ট শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ইতোমধ্যেই দুই শতাধিক গার্মেন্ট শ্রমিক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তারা গার্মেন্টসমূহ খুলে দেয়ার সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, এই মুহূর্তে কারখানাসমূহ খুলে দিলে গার্মেন্ট শ্রমিকদের জীবন চরম হুমকিতে পড়বে।

তারা আপাতত গার্মেন্ট বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান। দেশব্যাপী গার্মেন্ট কারখানা খুলে দেয়ার পূর্বে গার্মেন্ট কর্মীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে কারখানাসমূহে পরিপূর্ণ স্বাস্থ্যবিধি পালন নিশ্চিত করার জন্য আমরা সরকার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।”

Check Also

লাকসামে ছাত্রশিবিরের নেতাকর্মীদের উপর আওয়ামী সন্ত্রাসী হামলা ও পুলিশের মিথ্যা মামলা এবং গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

কুমিল্লা লাকসামে শিবির-জামায়াত সমর্থিত লোকজনের ব্যবসা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বাড়ি-ঘরে ব্যাপক ভাংচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *