Breaking News

ভিপি নুরের কক্ষের মেঝেতে কাতরাচ্ছেন আহতরা, পানি চেয়ে হাউমাউ কান্না (ভিডিও)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর ও তার অনুসারীদের ওপর হামলা চালিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। রোববার দুপুরে ডাকসুর গেট বন্ধ করে নুরের কক্ষে গিয়ে এ হামলা চালানো হয়। হামলায় ভিপি নুরসহ ৬জন রক্তাক্ত হয়েছেন। হামলায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও অংশ নেয় বলে জানা গেছে।

এদিকে মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের হামলার পরেই ফেসবুক লাইভে আসেন ভিপি নুর। এতে দেখা যায়, হামলার শিকার নুরসহ অন্যরা ডাকসু ভিপির রুমে ফ্লোরে পড়ে কাতরাচ্ছেন। সবাই হাউমাউ করে কান্না করছেন। এসময় অনেককেই পানির সাহায্য চাইতে শোনা যায়।এসময় কোটা আন্দোলনের নেতা আহত রাশেদ খান বলেন, আমাদের দরজা বন্ধ করে রড দিয়ে পেটানো হয়েছে। আমাদের অবস্থা খারাপ।

ভিসি ও প্রক্টরকে নিয়ে আসার জন্য উপস্থিত এক শিক্ষককে অনুরোধ করেন তিনি। রাশেদ বলেন, রুমের লাইট বন্ধ করে বাঁশ আর রড দিয়ে আমার মারধর হয়েছে। অনেকের মাথা ফাঁটানো হয়েছে। পা ভেঙে দেয়া হয়েছে। এসময় উপস্থিত ওই শিক্ষককে উদ্দেশ্য করে আহতরা বলতে থাকেন- স্যার, পুলিশ না আসলে আমরা ডাকসু থেকে বের হব না, প্রয়োজনে মরে যাব।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ডাকসু ভবনের মূল ফটক বন্ধ করে নুরের ওপর লাঠিসোটা নিয়ে হামলা করা হয়। এছাড়া বাইরে থেকেও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা ইট-পাটকেল ছুড়েন। এতে নুরসহ বেশ কয়েকজন রক্তাক্ত হন। জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের একাংশের সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুলের নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী এ হামলায় অংশ নেন।

এসময় ডাকসুর সদস্য ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য তাদেরকে বাধা দিতে গেলে তাকেও শিবির আখ্যা দিয়ে লাঞ্ছিত করেন মঞ্চের নেতাকর্মীরা। পরে সূর্যসেন হল সংসদের ভিপি মারিয়াম জামান সোহান এবং জিএস সিয়াম হামলায় অংশ নেন। তারাও লাঠিসোটা নিয়ে ভিপি নুর এবং অনুসারীদের মারধর শুরু করেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত পরিস্থিতি এখনও শান্ত হয়নি।

জানা গেছে, ঘটনার সময় ভিপি নুরের কক্ষে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস এবং সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন। সবাই মিলে মারধর করে নুরের কক্ষ থেকে পাঁচ জনকে বের করে দেন। একপর্যায়ে সনজিত ও সাদ্দাম সেখান থেকে বেরিয়ে আসলে অন্য একটি গ্রুপ ডাকসু ভবনে প্রবেশ করেন।

একপর্যায়ে তারাও নুরসহ অন্যদেরকে মারধর শুরু করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নুরসহ সবাইকে কক্ষের লাইট অফ করে দিয়ে মারধর করা হয়। আহত হয়ে কয়েকজন সেখানেই পড়ে আছেন। প্রক্টরিয়াল টিম গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করছেন। কয়েকজনকে অ্যাম্বুলেন্স এবং রিকশাযোগে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গত ১৭ ডিসম্বের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুরের ওপর হামলা চালিয়ে তার দুই আঙুল ভেঙে দেয় মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতাকর্মীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে ওইদিনের হামলায় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ১০জন আহত হন।যুগান্তর

Check Also

Amnesty and HRW urge Bangladesh to immediate release Mir Ahmad, Amaan Azmi

Two human rights organizations – Amnesty International and Human Rights Watch – have urged Bangladesh …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *